আগাম ধানে কৃষকের হাসি

বাগেরহাটের ফকিরহাট উপজেলায় বৈরি আবহাওয়া ও জমির লবনাক্ততা উপেক্ষা করে চলতি আমন মৌসুমে আগাম জাতের ব্রি-৭৫ ধানের বাম্পার ফলন হয়েছে। একর প্রতি গড়ে ৫০ মন ধান উৎপাদন হয়েছে। একইসঙ্গে প্রতি একরে প্রায় ৪৮ হাজার টাকার গো-খাদ্য (কুটা) উৎপাদন হওয়ায় চাষিরা বেজায় খুশি।

বেতাগার চাষি মো. ওহিদ শেখ বলেন, জমিতে লবণাক্ততার কারণে ও পানি সংকটে কয়েক বছর আমাদের জমিতে আমন মৌসুমে ধান গাছে থোড় আসার আগেই গাছ হলুদ হয়ে নষ্ট হয়। চলতি মৌসুমে কৃষি বিভাগের দেওয়া ব্রি-৭৫ লাগানো হয়েছে। আমাদের মাঠে অন্যান্য ধান কেবল থোড় আসতে শুরু করেছে। আর ব্রি-৭৫ ধান কাটা শুরু হয়েছে।

তিনি আরো জানান, এই ধানটির জীবন কাল ১০৫-১১০ দিন। অন্যান্য ধান পাকতে লাগে ১৩০-১৫০দিন। সেখানে এই ধানটি প্রায় এক মাস আগে পেকে গেছে।

টাউন নওয়াপাড়ার চাষি আরব আলী বলেন, অল্প দিন এ ধানটি পেকে যাওয়ায় আর্থিকভাবে লাভবান হয়েছি। অন্যদিকে আগাম রবি শস্য চাষাবাদ করতে পারছি।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা নাছরুল মিল্লাত বলেন, আমন মৌশুমে ৪৩৫০ হেক্টর জমিতে ধান চাষ হয়েছে। উন্নত প্রযুক্তিতে ধান চাষ করার জন্য চাষিদের বিভিন্ন প্রকল্পে মাধ্যমে সহায়তা প্রদান করা হয়েছে। এ মৌসুমে ব্রি-৭৫ ধানে বাম্পার ফলন ও চাষে খরচ কম হওয়ায় অনেকেই এই ধান চাষে আগ্রহ প্রকাশ করেছে।

 

সূত্রঃ কালের কণ্ঠ