”অমর একুশে ফেব্রুয়ারি” – শারমিন আক্তার শর্মী

নিউজ ডেস্ক

সিল্কসিটিনিউজ সাহিত্য ডেস্ক:

 

একুশ আমার রক্তে মিশে একুশ কাঁদে বুকের মাঝে,

একুশের কথা পড়লে মনে বুকটা কেঁপে উঠে ।

হাজারো মানুষের রক্তের দামে কৃষ্ণচূড়া লাল হয়েছে,

নিজের রক্ত ফেরি করে এনেছে মাতৃভাষাকে।

একুশ তুমি আজও আছো কৃষ্ণচূড়ায় আছো প্রতিটা মায়ের চোখের পাতায়,

বাংলার বুকে সোনা ফলিয়ে আজকে সালাম কবরে শুয়ে।

বরকতের রক্তে রাঙা হলো রাজপথ তেরোশত নদী হলো মায়ের অশ্রুজলে,

ভাইহারা বোনেরা কেঁদে ফেরে বলে –

আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি আমি কি ভুলিতে পারি?

রাতের আধাঁরে হায়নারা এসে কেড়ে নিয়েছে দেশের সম্পদকে,

কেড়ে নিয়েছে হাজারো রত্নকে তবুও তারা হারাতে দেয়নি বাংলাভাষাকে।

ফাল্গুনের দমকা হাওয়ায় থমকে গেছে পাখিরা

সবাই শুধু চারিদিকে গুলির আওয়াজ

শহীদের রক্তে কাঁদে রাতের আকাশ।

বায়ান্নোর সেই ভাষা আন্দোলনে রক্তের বন্যায় ভেসেছে রাস্তা- নদীর ঘাট,

আজও কি দূর হয়েছে পাকিস্তানি হানাদার?

বাংলা আমার মাতৃভাষা বাংলা জন্মভূমি,

শহীদের সেই আত্মত্যাগে পেয়েছি মাকে নতুন রঙে।

তুমি বীর,

দুরন্ত সেই যুবক তোমাদের আজও দেখি শাপলার বুকে,

বাংলা ভাষা আমার একুশের মান প্রতি বছর তাই দিয়ে যাই একুশের সম্মান।

একুশ তুমি স্বাধীনতার সুখ একুশ তুমি আমার মা,

একুশ তুমি লাল-সবুজ পতাকা একুশ তুমি শহীদের স্বাধীনতা।

 

লেখিকা: শারমিন আক্তার শর্মী

৩য় বর্ষ ইংরেজি বিভাগ

বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়, রাজশাহী।

শর্টলিংকঃ

প্রিয় পাঠক, স্বভাবতই আপনি নানান ঘটনার সাক্ষী। শেয়ার করুন আমাদের। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের ইমেলে পাঠিয়ে দিন, [email protected] ঠিকানায়। অথবা যুক্ত হতে পারেন @silkcitynews.com আমাদের ফেসবুক পেজে। কোন এলাকা, কোন দিন, কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই দেবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।