অনলাইন কেনাকাটার ৭২% মোবাইল ফোনে

নিউজ ডেস্ক

স্মার্টফোনের কল্যাণে ইন্টারনেট এখন সবার হাতে হাতে। ফলে মানুষ অনলাইন কেনাকাটায় উৎসাহিত হচ্ছে। বাজার গবেষণা প্রতিষ্ঠান পিওয়াইএমএনটিএস এর এক জরিপে বলা হয়, ২০২০ সালে  অনলাইন কেনাকাটার ৭২ শতাংশ  হচ্ছে মোবাইল ফোনে। ২০১৯ সালে এ হার ছিল ৪৯.৬ শতাংশ। প্রতিষ্ঠানটির মতে, স্মার্টফোনের কল্যাণে ভোক্তারা এখন অনলাইন কেনাকাটায় অভ্যস্ত হয়ে উঠেছে। ফলে ই-কমার্স কম্পানিগুলোর অর্ডার ও রাজস্ব প্রবৃদ্ধি এখন তিন অংকে হচ্ছে।

গত ২৭ এপ্রিল জাতিসংঘের বাণিজ্য ও উন্নয়ন সংস্থা আঙ্কটাড প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে বলা হয়, করোনাভাইরাস সংকটে ডিজিটাল সমাধান এখন আরো সাফল্য পাচ্ছে। সংস্থা জানায়, ২০১৮ সালে বিশ্বের ১৪০ কোটির বেশি মানুষ অনলাইনে কেনাকাটা করেছে। যা বিশ্বের জনসংখ্যার এক চতূর্থাংশ। এ কেনাকাটা আগের বছরের চেয়ে ৯ শতাংশ বেশি। সবচেয়ে বেশি অনলাইন কেনাকাটা করেছে চীনের মানুষ। যে সংখ্যা ৬১ কোটি। বিদেশী পণ্য কিনেছে বা আন্তসীমান্ত কেনাকাটা করছে বিশ্বের ৩৩ কোটি মানুষ। যা ২০১৮ সালের কেনাকাটার ২৩ শতাংশ।

অনলাইন বেচাবিক্রিতে শীর্ষ কম্পানিগুলোর মধ্যে রয়েছে আলিবাবা, আমাজন ও জেডি ডটকম।  বাংলাদেশে বেশ কয়েক বছর ধরেই অনলাইনে কেনাকাটার আগ্রহ বাড়ছে মানুষের মাঝে। কর্মব্যস্ততার কারণে রাস্তার যানজট ঠেলে, দোকানে গিয়ে কেনা তাই অনেকেই এখন সময়ের অপচয় বলে মনে করছেন। এর মধ্যে চলতি বছর করোনা হানা দেয়ায় মানুষ এখন বাইরে বের হতেই ভয় পাচ্ছেন। ফলে অনেকেই ঈদের কেনাকাটা এখন অনলাইনেই সেরে নিচ্ছেন। এর ফলে অনলাইন কম্পানিগুলোও নানা রকম পণ্যের পসড়া সাজিয়ে রেখেছে ক্রেতাদের জন্য।

 

সুত্রঃ কালের কণ্ঠ

শর্টলিংকঃ

প্রিয় পাঠক, স্বভাবতই আপনি নানান ঘটনার সাক্ষী। শেয়ার করুন আমাদের। ঘটনার বিবরণ, ছবি, ভিডিও আমাদের ইমেলে পাঠিয়ে দিন, [email protected] ঠিকানায়। অথবা যুক্ত হতে পারেন @silkcitynews.com আমাদের ফেসবুক পেজে। কোন এলাকা, কোন দিন, কোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই দেবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।