বিএনপি কর্মীদের বিরুদ্ধে আ’লীগের নারী কর্মীদের উত্ত্যক্তের অভিযোগ 

July 12, 2018 at 6:50 pm

নিজস্ব প্রতিবেদক:

রাজশাহী সিটি নির্বাচনে বিএনপির মেয়র প্রার্থীর সমর্থকদের বিরুদ্ধে নারী কর্মীদের উত্ত্যক্ত, অপপ্রচার ও সংখ্যালঘু ভোটারদের হুমকির অভিযোগ দিয়েছে মহানগর আওয়ামী লীগ। আজ ইসিতে আওয়ামী লীগের মেয়র প্রাথী এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটনের স্বা্ক্ষরিত চারটি অভিযোগ পত্র দেওয়া হয়।

অভিযোগ পত্রে বলা হয়, রাজশাহী কোর্ট স্টেশন এলাকায় বস্তিতে বিএনপি নেতারা গতকাল বুধবার বিকেল সাড়ে ৪টায় প্রচারণার অংশ হিসেবে সধারণ ভোটার দের প্ররোচিত করে মিথ্যা ও বিভ্রান্তিকর প্রচারণা চালায় । বিএনপি নেতাকর্মীরা বলেন, নৌকা প্রতিকের এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন নির্বাচনে জয় লাভ করলে রাতারাতি এসব বস্তি উচ্ছেদ করে আপনাদের বিতারিত করবে। এছাড়া ধানের শিষের প্রতিকে এখানকার সাধারন ভোটাররা ভোট দিলে আপনাদের শাড়ি, লুঙ্গি বিভিন্ন প্রকার উপঢৌকন দেয়া হবে বলে প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেন।

নগরীর হেতমখাঁ এলাকায় ছোট মসজিদের সামনে গত মঙ্গলবার রাতে আ’লীগের প্রার্থীর দড়ি দিয়ে পোস্টার টাঙানো হয়। বিএনপি নেতারা গতকাল বুধবার রাতে যেকোন সময় দড়ি কেটে ফেলে ধানের শিষের প্রার্থীর পোস্টার ঝুলিয়ে দেয়। সকাল ১০টায় আ’লীগ নেতা কর্মীরা সেখানে অবস্থাথানরত বিএনপি নেতাকর্মীদের পোস্টার টাঙানোর বিষয়ে জিজ্ঞাসা করলে তারা আ’লীগ কমীদের মারমুখি ও উশৃঙ্খল আচারণ করে।

নগরীর আসম কলোনী এলাকায় রবের মোড় এলাকায় বিএনপি প্রার্থীর বিলবোর্ড রাখার গোডাউন রয়েছে। গত মঙ্গলবার বিকেলে আ’লীগ প্রার্থীর হ্যান্ডবিল নিয়ে ১৮ নং ওযার্ডে কিছু মহিলা কর্মী উক্ত গোডাউন সামনে দিয়ে যাওয়ার সময় ধানের শীষের সমর্থকেরা অশ্লীল শব্দ ব্যবহার করে উত্ত্যাক্ত করে। এসময তারা বিভন্ন ভাবে কটুক্তি করে বলেন, ‘ শেখ হাসিনা মরবে তোদের কে দেখে নেব’। নৌকা প্রতিকের কর্মীরা কিছুৃ দূর গেলে তারা আবার হুমকি দেয়।

গত মঙ্গলবার দুপুর ২টায় নগরীর সাহেব বাজার আরডিএ মার্কেটে সুলতানের দোকানে বিএনপি প্রার্থী মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুলসহ অন্যান্য নেতাকর্মীরা উপস্থিত হয়ে তাকে হুমকি দেয় এবং ধানের শিষের পক্ষে কাজ করার জন্য বল প্রয়োগ করে। ধানের শিষের মেয়র প্রার্থী তাকে বলে, গতবার সুলতান তুমি দানের শিষের পক্ষে কাজ করেছে এবার কেন লিটনের পক্ষে কাজ করছো? সুলতাল বলে, এবার আমি লিটন ভাই কে ভোট দিব। তখন বুলবুল বলে, তুমি আমার সাথে থাকবা। সুলতান উত্তর দেয় আমি এবার লিটন ভাইয়ের পক্ষে ভোট করবো। বুলবুল তখন আবার বলে, আমার উপশহর এলাকায় তোমার বাড়ি, তোমাকে পড়ে দেখছি, তোমার ব্যবস্থা হবে।

উক্ত অভিওযাগের প্রেক্ষিতে সুবিচার করারও আবেদন করা হয়।

স/অ

Print