পেটে ১০ মাসের বাচ্চা নিয়ে সড়ক দুর্ঘটনায় মারা গেলো ঝর্ণা

June 24, 2018 at 2:55 pm

আব্দুল বাতেন, গোদাগাড়ী:
গোদাগাড়ী উপজেলার রাজশাহী-চাঁপাইনবাবগঞ্জ মহাসড়ক যেন এখন নিত্য দিনের মরণ ফাঁদ হয়ে দাঁড়িয়েছে। প্রতিদিনই সড়ক দুর্ঘটনা যেন পিছু ছাড়ছে না। গত রমজান মাস হতে যেন দুর্ঘটনার মাত্রা বহুগুনে বেড়ে গেছে। ঝরে যাচ্ছে অনেকের প্রাণ আর এতেই নিঃস্ব হচ্ছে পরিবার। কেউ পঙ্গুত্বের গ্লানি নিয়ে বাঁচছে।

তবে এবার পেটে বাচ্চা নিয়েই মারা গেলেন রাজিয়া সুলতানা ঝর্ণা (২৬)। প্রায় ১০ মাসের অন্ত:স্বত্বা  ঝর্ণার গর্ভে ছিল ১০ মাসের বাচ্চা । চোখে মুখে দেখছিলো মা হবার স্বপ্ন  আর আনন্দ। কিন্তু গোদাগাড়ীর এখন নিত্য দিনের সঙ্গি সড়ক দুর্ঘটনা তার পিছু ছাড়লো না । আর ১৫ দিন পরই ভূমিষ্ট হতো রাজিয়া সুলতানার গর্ভে ধারণ করা শিশুটি। ঘাতক ট্রাক কেড়ে নিলো মা ও শিশুর প্রাণ।  চারিদিকে পড়লো কান্নার রোল । কে থামাবে তাদের কান্না।

এমন করুণ ঘটনা ঘটেছে গোদাগাড়ী উপজেলার বাসুদেবপুর ইউনিয়নের সুয়েজগেট এলাকার রাজশাহী-চাঁপাইনবাবগঞ্জ মহাসড়কের উপর।   রোববার দুপুর ১ টার দিকে এই ঘটনা ঘটে।

গোদাগাড়ী মডেল থানার এএসআই আহসান হাবিব জানান, দুপুরে রাজশাহী হতে ছেড়ে আসা চাঁপাইনবাবগঞ্জগামী একটি ট্রাক চাঁপাইনবাবগঞ্জ হতে ছেড়ে আসা গোদাগাড়ীগামী অটোরিক্সাকে মুখোমুখি ধাক্কা দেয়। ঘটনাস্থলেই দুমড়ে মুচড়ে যাই অটোরিকশা আর অটোরিকশার পেছনে ছিলো একটি মোটরসাইকেল আরোহী । সেই পড়ে যাই মহাসড়কের উপর।

স্থানীয়রা দ্রুত রাজিয়া খাতুনকে উদ্ধার করে চাঁপাই নবাবগঞ্জ সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করে। রাজিয়া খাতুন গোদাগাড়ী উপজেলার সুলতানগঞ্জ কবুতর পাড়ার রফিকুল ইসলামের মেয়ে।

অটোরিক্সার অন্য যাত্রী ও মোটর সাইকেল আরোহীরা আহত হয়েছে বলে জানা গেছে তবে তাৎক্ষণিক পরিচয় পাওয়া যায়নি।

তবে দ্রুত গতির ঘাতক ট্রাকটি পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়েছে বলে জানা যায়। ট্রাকটিকে আটকের তৎপরতা চলছে বলে এএসআই আহসান হাবিব জানান। গোদাগাড়ী মডেল থানার ওসি জাহাঙ্গীর আলম বলেন, ঘটনাস্থলে পুলিশ গেছে, সব কিছু আইনগতভাবে সম্পন্ন করা হবে বলে।

স/শা

Print