বিমান দুর্ঘটনায় রাজশাহীর আরো এক নারী নিহত, তিনি নিউইয়র্ক প্রবাসী মিতু

March 14, 2018 at 12:59 pm

নিজস্ব প্রতিবেদক:

নেপালে ইউএস বাংলার বিমান দুর্ঘটনায় রাজশাহীর আরো এক নারী নিহত হয়েছেন বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে। তার নাম মিতু ইসলাম।

তিনি রাজশাহী নগরীর নওদাপাড়া এলাকার বাসিন্দা কিবরিয়ার মেয়ে। মিতু নিউইয়র্ক প্রবাসী ছিলেন। সেখান  থেকে কয়েকদিন আগে দেশে ফিরেন। এরপর মিতু গত ১২ মার্চ (সোমবার) নেপাল ভ্রমন করতে যান। কিন্তু ইউএস বাংলার সেই দুর্ঘটনা কবলিত যাত্রী ছিলেন তিনি। ফলে তিনিও মারা যান বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে।

এদিকে মিতু নিহত হওয়ার খবরটি নিশ্চিত করেছেন তার বন্ধু ইতালি প্রবাসী জাকির হোসেন। তিতি তার ফেসবুকে লিখেন,  ভাবতেও পারছিনা, যমুনা টিভির নিউজে জানতে পারলাম মিতু ইসলাম নেপালের  দুর্ঘটনা কবলিত ইউএস বাংলার প্লেনে ছিলো।

ওর সাথে আমার পরিচয় ফেসবুকে প্রায় ৪ বছর আগে । মাঝে মাঝে ফোনে কথাও হতো। প্রায় দুই বছর আগে আমাকে একদিন বললো, ভাইয়া কাকন ভাবীর সাথে পরিচিত হলাম না, ভাইয়ার সাথেই কথা হয়। আমি কাকনের নাম্বারটা দিয়ে দিলাম। পরের দিন আমাকে কল করে বললো, ভাইয়া ভাবীর সাথে আমার আজ কথা হয়েছে । মিতুর বাড়ী রাজশাহী জেলায়। ও ঢাকাতে থাকতো।

একদিন আমাকে বললো, ভাইয়া আমার বিয়ে ঠিক হয়েছে, আপনি ও ভাবী আমার বিয়েতে থাকবেন কিন্তু। আমি বল্লাম, ভাইরে আমিতো আসতে পারবোনা। ও বললো, ভাইয়া আমাদের জন্য দোয়া করবেন। বিয়ের পর ও চলে গেলো আমেরিকার নিউইয়র্কে। এর পরেও বহু বার কথা হয়েছে। আমেরিকা হতে মিতু বাংলাদেশে গেছে আমি জানতাম না। তুমি মারা গেলে জন্মের মাসেই। এ মাসের ১৫ তারিখ ছিলো তোমার জন্মদিন। আর আমরা তোমাকে হারালাম ১১ তারিখে। আর কোনদিন কথা হবে না তোমার সাথে। আর কখনো বলবে না ভাবী ও শ্রদ্ধা কেমন আছে। আল্লাহ তোমাকেসহ যারা নিহত হয়েছে তাদের জান্নাতবাসী করুন ।

এনিয়ে সবমিলিয়ে রাজশাহীর ছয়জন বাসিন্দা নেপালের ওই বিমান দুর্ঘটনায় নিহত হন। যাদের মধ্যে চারজনই হলেন নারী।

অপরদিকে জানা গেছে, মিতুর এর আগে রাজশাহী নগরীর উপশহর এলাকার ইমরান হোসেন জন নামের এক ব্যক্তির সঙ্গে বিয়ে হয়েছিল। চার বছর সংসার হওয়ার পরে তাদর ছাড়াছাড়ি হয়ে যায় ২০১৩ সালে।

স/আর

Print