বিএনপিকে মির্জা ফখরুল বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে হবে এখনই 

March 13, 2018 at 11:15 pm

সিল্কসিটিনিউজ ডেস্ক:

বিএনপিতে বিভক্তি সৃষ্টিকারী নেতাদের তালিকায় শীর্ষে অবস্থান করছেন দলের সিনিয়র নেতা মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। দলে বিভক্তি, নিজের অবস্থান ও দলের সাথে সামঞ্জস্যহীন বিভিন্ন কর্মকাণ্ডের জন্য তিনি যেমন দলের মধ্যে নিগ্রহের শিকার হচ্ছেন, তেমনি সমানভাবে হেয় প্রতিপন্ন হচ্ছেন রাজনৈতিক মহলেও। এমন পরিস্থিতিতে সম্প্রতি মির্জা ফখরুলের বিষয়ে নতুন করে ভাবতে বিএনপিকে তাগিদ দিয়েছেন মীনা ফারাহ। যিনি রাজনৈতিক মহলে বিএনপি ও জামায়াত সমর্থিত লেখিকা হিসেবে সমধিক পরিচিত।

বিএনপির রজনৈতিক হালচাল ও বিতর্কিত নেতাদের বিষয়ে মনোভাব প্রকাশ করতে গিয়ে মীনা ফারাহ মির্জা ফখরুল বিষয়ে বলেন, তার বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত ও ভাবার সময় বিএনপির এসে গেছে। দেখা উচিত উনি আসলে কে? দলের জন্য কী করেছেন এবং কী অর্জন তার? ভাঙ্গা রেকর্ডের মতো উল্টাপাল্টা কথা বলেই যাচ্ছেন। তিনি আসলে কী বলতে চান আর কী লুকিয়ে রাখেন তা ভেবে দেখার সময় এখনই। আজ অব্দি তিনি দলের জন্য কী এনেছেন?

প্রসঙ্গত, দুর্নীতি মামলায় দলীয় প্রধান বেগম খালেদা জিয়ার কারাদণ্ডের আগে ও পরে বিএনপির ভাঙন ও বিভক্তি নিয়ে যাদের বিরুদ্ধে ঘোরতর অভিযোগ উঠেছে তাদের মধ্যে মির্জা ফখরুল শীর্ষস্থানীয়। অভিযোগের এক পর্যায়ে এ নিয়ে যুগ্ম-মহাসচিব রিজভী দলের মহাসচিব ফখরুলসহ বিভক্তি সৃষ্টিকারী নেতাদের ‘বিএনপির ডেভিল নেতা’ হিসেবেও আখ্যায়িত করেন। এতে মির্জা ফখরুলের প্রতি সিনিয়র অনেক নেতারই বিশ্বাসের যায়গা নষ্ট হয়ে গেছে। সর্বশেষ মির্জা ফখরুল ও মওদুদ মিলে বিএনপির বাইরে নতুন দল গঠনেরও সিদ্ধান্ত বিষয়ে সংবাদ গণমাধ্যমে চাউর হবার পর তা বিএনপির সংকটে নতুনমাত্রা শুরু করেছে।

এমতাবস্থায় দলে মির্জা ফখরুলের ব্যর্থতার কথা উল্লেখ করে মীনা ফারাহ বলেন, খালেদার মুখপাত্র হয়ে মির্জা ফখরুল তার জন্য কী এনে দিলেন- যে জন্য তাকে বাহবা দিতে পারি? উনি কী দলের নাকি দলের বাইরের লোক? নাকি গুপ্তচর? দলের হলে এভাবে কথা বলেন কেন? চাকরের পোস্ট তো উনাকে দেয়া হয় নাই। ফাতেমার কাজ তো তার হতে পারে না। এখন প্রশ্ন হচ্ছে তাহলে দলের ভেতরে উনার অবস্থান কী? একজন মহাসচিব হয়েও তিনি জোকারের মত কথা বলছেন। উনি উত্তপ্ত না হয়ে মিষ্টি মিষ্টি কথা বলেন। উনি আওয়ামী লীগের সুরে কথা বলে সব সময় ক্লাউনের মতো আচরণ করছেন।

মির্জা ফখরুলের অবস্থানগত দিক ও তার কার্যকলাপ বিবেচনা করে সমালোচনা করতে গিয়ে মীনা ফারাহ আরও বলেন, উনি মির্জা ফখরুল নাকি মীরজাফর ফখরুল? আমি মনে করি উনি বিএনপির ভেতরে একজন আওয়ামী লীগের বেতনভুক্ত `মীরজাফর ফখরুল’। যার একমাত্র কাজ, খালেদাকে জেলে রেখে দল ভেঙ্গে অন্য বিএনপির নামে হাসিনাকে ক্ষমতায় রাখা। নামেও মিল, কাজেও মিল।

দলে মির্জা ফখরুলের অযোগ্যতার কথা বলে তার মতো মহাসচিবকে আমি আমার জুতা পালিশ সচিবের পদেও রাখবো না। কত কোটি টাকা খেয়ে সে তাল দিচ্ছে, ভাবুক বিএনপি। দল বাঁচাতে চাইলে মির্জা ফখরুলকে ঘাড়ে ধরে আজকেই বের করে দেয়া উচিত। আমার কথা সবসময় সত্য হয়। কারণ, আমি বাস্তববাদী কথা বলি। ফখরুল গুপ্তচর, কেউ বুঝুক না বুঝুক। কয় বছরে আমি তাকে হাড়ে হাড়ে চিনেছি। বিএনপিকে বলছি, মির্জা আপনাদের শত্রু। সে ঘরের শত্রু- কুখ্যাত মীরজাফর ফখরুল। সূত্র: অনলাইন

Print