গোলাপের আগুনে পুড়ছে ভালোবাসা !

February 14, 2018 at 11:01 am

নিজস্ব প্রতিবেদক:

চারদিকে বইছে বসন্তের হাওয়া। এই হাওয়া গা ভাসাতে কার না মন চায়। সঙ্গে যদি থাকে বিশেষ কেউ। তাহলে আর কথা নেই। কাঁচা হলদে শাড়ি, মাথায় একটা ফুলের মুকুট। মনে করিয়ে দিচ্ছে বাঙালির প্রাণের উৎসব বসন্তের কথা।

ঋতুরাজ বসন্তের পয়লা দিনের রেশ কাটতে না কাটতেই ভালোবাসা দিবস। তাই শহর জুড়েই যেন ছিলো উৎসবের ঘনঘটা। আর এই দুই উৎসবেরই কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত হয়েছে ‘ফুল’। নানান রঙ, নাম ও সুগন্ধের ফুল। ফুল হাজার বছর ধরে ভালোবাসা আর পবিত্রতার প্রতীক হিসেবেই পরিচিতি। বসন্ত বরণ, ভালোবাসা দিবস উপলক্ষে নগরীর ফুলের দোকানগুলো সাজানো হয়েছে বিভিন্ন ফুলে। বাসন্তীতে ফুল বিক্রি শুরু হলেও শেষ হয় ভালোবাসা দিবসে শেষ লগনে।

গতকাল মঙ্গলবার সকালে নগরীর ফুল বাজারের ব্যবসায়ীরা জানায়, বিশেষ দিন পালনের লক্ষ্যে আগেভাগেই প্রস্তুতি নিয়েছিলেন তারা। কেবল বসন্তবরণ ও ভালোবাসা দিবসে শহর জুড়ে লাখ লাখ টাকার ফুল বিক্রি করে ব্যবসায়ীরা। তবে বসন্তবরণের চেয়ে ভালোবাসা দিবসে ফুলের দাম আরো বেড়ে যায় এমনটি বলছিলেন ব্যবসায়ীরা।

তবে কয়েক দিন আগের যে গোলাপ ১০ টাকা ছিলো। সেই গোলাপ নেয়া হচ্ছে ২০ টাকা করে। আবার ভালোবাসা দিবসের দিনে সেই গোলাপ ৪০ থেকে ৫০ টাকায় বিক্ করা হচ্ছে। এ যেনো ফাগুনের আগুন লেগেছে ফুলে ।

প্রতিটি ফুল দোকানের সামনেই রয়েছে ক্রেতাদের উপচে পড়া ভিড়। কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের তরুণ-তরুণীরা দরদাম করে নিজ নিজ পছন্দের ফুলটি বেছে নিতে ব্যস্ত রয়েছেন। কেউ কেউ নিজ মাথার মাপ মত বাহারি ফুল দিয়ে তৈরি করা ‘মুকুট’ (ফ্লাওয়ার রিং) পরিয়ে নগরীর স্থায়ী ও অস্থায়ী মিলে দেড় শতাধিক ফুলের দোকানে বিক্রি হচ্ছে নানান নামের ও সুগন্ধের ফুল। এর মধ্যে লাল গোলাপ, জারবেরা, রজনীগন্ধা, গাঁদাসহ নানা রঙ ও বর্ণের ফুল রয়েছে। বেশির ভাগ ফুলই আমদানি করা হয়েছে যশোরের ঝিকড়গাছা থেকে। ফুলের মুকুটগুলো বিক্রি করা হচ্ছে ১৩০ থেকে ১৫০ টাকায়।

সাহেববাজার জিরোপয়েন্ট এলাকার গিফট ফুল কর্নারে সন্তোস কুমার বলেন, বসন্তবরণে সাধারণত ফুলের দাম কম থাকে। গতকাল মঙ্গলবার একটি লাল গোলাপ বিক্রি হয়েছে ২০ টাকায়। রঙিন গ্লাডিওলাস ৩০-৩৫ টাকা, রজনীগন্ধার স্টিক ১৫-২০ টাকা, গাঁদা ৫০ টাকা, জারবেরা ৪০ থেকে ৫০ টাকায়।

ফুল কিনতে আসা রাজশাহী কলেজের সমাজ বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. নাজনীন সুলতানা বলেন, বাংলাদেশের নিজস্ব সংস্কৃতি ও ঐতিহ্য এ মাসে ফুটে ওঠে। বসন্তী রঙ পোষাক ও ফুলের সমারোহে সজ্জিত হয় এযুগের কিশোরী তরুণীরা। অনেক ভালো লাগছে, আকাশে-বাতাসে ছড়াচ্ছে বসন্তের উৎসব।

 

স/আ

Print