চাদরে ‘চেপে’ কীভাবে পালালো আলিপুরের তিন বন্দি!

January 14, 2018 at 1:18 pm

সিল্কসিটিনিউজ ডেস্ক:

সংশোধনাগারের দেওয়াল টপকে পালিয়ে গেল তিনজন বন্দি৷ তাদের মধ্যে দু’জন আবার বাংলাদেশি নাগরিক৷ শনিবার রাতে তারা পালিয়ে যায়৷ রবিবার সকালে বিষয়টি সংশোধনাগার কর্তৃপক্ষের নজরে আসে৷ তার পর থেকেই জেলের অন্দরে হুলস্থুল পড়ে গিয়েছে৷

আলিপুর কেন্দ্রীয় সংশোধনাগার সূত্রে জানা গিয়েছে, রোজ সকালে বন্দিদের সংখ্যা মিলিয়ে দেখা হয়৷ এটা নিয়মমাফিক একটা কাজ৷ রবিবার সকালেও সেই কাজ হচ্ছিল৷ তখনই দেখা যায় বন্দিদের সংখ্যা মিলছে না৷ তিনজন বন্দিকে খুঁজে পাওয়া যায়নি৷ এর ফলে রবিবার সকাল থেকে জেলের অন্দরে হইচই শুরু হয়৷ জেলের রক্ষীরা খোঁজখবর শুরু করেন৷

জেল সূত্রে খবর, আদিগঙ্গার ধারে আলিপুর কেন্দ্রীয় সংশোধনাগারের যে দেওয়াল রয়েছে, সেই দেওয়াল টপকেই ওই তিন বন্দি পালিয়েছে৷ বন্দিদের জন্য যে চাদর দেওয়া হয়, সেই চাদর ছিঁড়ে দড়ি তৈরি করে বন্দিরা৷ তার পর ওই দড়ি দেওয়ালের এদিক থেকে ওদিকে ফেলে পালিয়ে যায়৷ শনিবার রাতের অন্ধকারে তারা পালিয়েছে৷ আলিপুর কেন্দ্রীয় সংশোধনার কর্তৃপক্ষ ও আলিপুর থানার পুলিশ এই ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে৷ পুলিশ সূত্রে খবর, ইতিমধ্যেই রাজ্যের সমস্ত থানাকে গোটা বিষয়টি জানানো হয়েছে৷ ওই তিন বন্দির ছবিও পাঠানো হয়েছে৷

বাংলাদেশ সীমান্তবর্তী জেলাগুলির থানাগুলিকে সতর্ক করা হয়েছে৷ কারণ, পুলিশের ধারণা, সীমান্ত পেরিয়ে ওই তিনজন বাংলাদেশে পালিয়ে যেতে পারে৷ এর জন্য পুলিশের তরফে বিএসএফের সঙ্গেও যোগাযোগ করা হচ্ছে বলেও সূত্র মারফত জানা গিয়েছে৷

এই বিষয়ে আপাতত আলিপুর কেন্দ্রীয় সংশোধনাগার কর্তৃপক্ষ মুখে কুলুপ এঁটেছে৷ তাঁরা এবিষয়ে কিছুই জানাতে নারাজ৷ ওই বন্দিরা কবে থেকে আলিপুর জেলে ছিলেন? কী অভিযোগে তাদের সাজা হয়েছিল? এই প্রশ্নের কোনও উত্তর পাওয়া যায়নি৷ এ বিষয়ে মুখ খুলছে না পুলিশও৷

Print