চুরি হওয়া শিশুটিকে পাওয়া গেল নারায়ণগঞ্জে

November 21, 2017 at 6:31 pm

সিল্কসিটিনিউজ ডেস্ক:

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে চুরি হওয়া তিন মাস বয়সী শিশুটিকে উদ্ধার করা হয়েছে। আজ মঙ্গলবার বিকেলের দিকে নারায়ণগঞ্জ জেলার ফতুল্লার কাশিপুর এলাকায় মনোয়ারা বেগম নামে এক নারীর বাসা এলাকা থেকে শিশুটিকে উদ্ধার করে শাহবাগ থানা-পুলিশের একটি দল। পুলিশের রমনা বিভাগের উপকমিশনার মারুফ হোসেন সরদার বলেন, শিশুটিকে উদ্ধার করে ঢাকায় আনা হচ্ছে।

তবে মনোয়ারা বেগমের দাবি, শিশুটিকে তাঁর কাছে বিক্রি করা হয়েছিল। বিনিময়ে শিশুটির মা সুমাইয়া আকতার ১০ হাজার টাকা নিয়েছিলেন। এ কথা জানিয়ে ফতুল্লা থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মো. সেলিম বলেন, গ্রেপ্তারের পর মনোয়ারা বেগম পুলিশের কাছে এই দাবি করে জানান যে সুমাইয়া নিজে তাঁর কাছে শিশুটিকে তুলে দেন। এই ফুটেজ ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ক্লোজড সার্কিট ক্যামেরায় ধারণ করা আছে।

এদিকে শিশু চুরির এ ঘটনায় তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা করেছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। কমিটির প্রধান হলেন হাসপাতালের উপপরিচালক (অর্থ) বিদ্যুৎ কান্তি পাল। অন্য দুই সদস্য হলেন হাসপাতালের সহকারী পরিচালক মো. আবু জাহের ও সাইদুজ্জামান। কমিটিকে তিন কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।

গতকাল সোমবার দিবাগত রাত ১২টা থেকে ১টার মধ্যে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের নতুন ভবনের মেডিসিন বিভাগের ওয়ার্ড থেকে ঘুমন্ত অবস্থায় মায়ের পাশে থাকা তিন মাসের শিশু (জিম) চুরি হয় বলে শিশুটির পরিবারের সদস্যরা এ অভিযোগ করেছেন।

শিশুটির পরিবার সূত্রে জানা গেছে, শিশুটির বাবা জুয়েল মিয়া রিকশাচালক। কিছুদিন ধরে তিনি অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি। জুয়েল মিয়ার স্ত্রী সুমাইয়া আকতার তাঁকে দেখাশোনার জন্য শিশুটিকে নিয়ে রাতে হাসপাতালে ছিলেন। একপর্যায়ে শিশুটিকে পাশে নিয়ে তিনি ঘুমিয়ে পড়েন। পরে শিশুটিকে আর খুঁজে পাননি। রাতেই বিষয়টি ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পুলিশ ফাঁড়িতে অভিযোগ করেন তাঁরা।

পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ উপপরিদর্শক (এসআই) বাচ্চু মিয়া বলেন, ‘শিশুটির স্বজনেরা অভিযোগ করেন। আমরা পুরো বিষয়টি শাহবাগ থানাকে অবহিত করি।’

সূত্র: প্রথম আলো

Print