সাপাহারে বৈরী আবহাওয়া কৃষকগণ দিশেহারা

October 21, 2017 at 9:55 pm

সাপাহার প্রতিনিধি:
চলতি মৌসুমে বরেন্দ্র অঞ্চল নওগাঁর সাপাহারের কৃষকগণ আমন চাষাবদে বাম্পার ফলনের আশায় বুক বাধলেও হঠাৎ করে টানা দু’দিনের বৃষ্টি ও প্রবল বাতাসে ক্ষেতের ধান ক্ষেত মাটির সাথে শুয়ে পড়ায় কৃষকগণ দিশেহারা হয়ে পড়েছে।

এবারের আবহাওয়া আমন চাষাবাদের অনুকুলে থাকায় এলাকার কৃষকগণ তাদের সর্বস্ব খুইয়ে আমন চাষাবাদ করেছিল। সে মতে কোন রকম আপদ বালাই ছাড়া ক্ষেতের ধান গাছগুলিও সুস্থ্যসবল আকিৃতির হয়ে সারা মাঠ ভরপুর হয়ে উঠেছিল। হঠাৎ করে টানা দু’দিনের বৃষ্টি ও প্রবল বাতাসে সব সপ্ন এলোমেলো করে দিয়েছে। নবান্ন উৎসবের আনন্দে কৃষক যখন স্বপ্ন দেখছিল হঠাৎ সে মহুর্তে বৈরী আবহাওয়া কৃষকের সে স্বপ্ন ভেঙ্গে লন্ড ভন্ড করে দিল। শনিবার সকালে এলাকার অসংখ্য ধানের মাঠ ঘুরে এই বেহাল অবস্থা চোখে পড়ে।

এ বিষয়ে উপজেলা কৃষি অফিসের সাথে যোগাযোগ করা হলে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা এএফএম গোলাম ফারুক হোসেন জানান যে, এবারে সাপাহার উপজেলায় সর্বমোট ১৬হাজার ৫০০ হেক্টর জমিতে আমন চাষাবাদ করা হয়েছে। অতিতের যে কোন বছরের চেয়ে এবারে কৃষকের মাঠের ধান গাছের অবস্থা ভাল। কোন রকম আপদ বালাই না হলে এবারে সাপাহার উপজেলায় আমন চাষাবদের বাম্পার ফলনের আশা করা হচ্ছিল।

উপজেলা কৃষি দপ্তরও মনে করেছিল সামনে আর কয়েকটি দিন প্রাকৃতিক কোন দুর্যোগ কিংবা অনিষ্টকারী পোকামাকড়ের অত্যাচার হতে রেহায় পেলেই সাপাহারে এবার আমন চাষাবাদে বাম্পার ফলন পাওয়া যাবে। যা অন্যান্য বছরের ন্যায় এবারেও উপজেলার খাদ্য ঘাটতি মিটিয়ে দেশের অন্যত্র প্রচুর খাদ্য শস্য পাঠানো যাবে কিন্তু শেষ মহুর্তে এসে কার্তিক মাসের প্রাকৃতিক দুর্যোগ এই ঝড়ে কিছুটা হলেও কৃষকের ক্ষতি হয়েছে।

কৃষি অফিসের এক জরিপে এই ঝড়ে উপজেলায় কৃষকের প্রায় ৫০হেক্টর জমির ধান হেলে মাটিতে শুয়ে পড়েছে তবে দু’এক দিনের মধ্যে প্রখর রোদ হলে আংশিক ধান গাছ সম্পূর্ন রুপে দাঁড়িয়ে যাবে। প্রথমে আবাদের অবস্থা দেখে ফলনের যে আশা করা যাচ্ছিল বর্তমানে তা কিছুটা হলেও হ্রাস পাবে। তবে উপজেলার একাধীক কৃষকের মতে ক্ষতির পরিমান আরো অনেক বেশী হবে বলে তারা জানিয়েছেন।

স/শ

Print