রামেক হাসপাতালের নার্সকে মারপিট ও শ্লীতাহানীর অভিযোগে মামলা, বাবাসহ ছাত্রলীগ নেতা কারাগারে

August 13, 2017 at 12:39 pm

নিজস্ব প্রতিবেদক:

রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের নার্সকে মারপিট ও শ্লীতাহানীর অভিযোগে মামলা দায়ের করা হয়েছে। ওই মামলায় গ্রেপ্তারকৃত ছাত্রলীগ নেতা হিমেল এবং তার বাবা জাহাঙ্গীর আলমকে জেলহাজতে প্রেরণ করা হযেছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন রাজপাড়া থানার ওসি হাফিজুর রহমান। তিনি সিল্কসিটি নিউজকে জানান, রামেক হাসপাতালের সিনিয়র স্টাফ নার্স ফেরদৌসি খাতুন বাদী হয়ে শ্লীতাহানী ও সরকারি কাজে বাধা দান এবং মারপিটের অভিযোগে ছাত্রলীগ নেতা হিমেল এবং তার বাবা জাহাঙ্গীর আলমকে আসামি করে শনিবার বিকেলেই মামলাটি করেছেন।

ওই মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে রবিবার সকোলে দুই আসামিকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে তদন্ত চলছে।

এর আগে শনিবার (১২ আগস্ট) সকাল ১০টার দিকে ছেলে ছাত্রলীগ নেতা হিমেলকে সঙ্গে নিয়ে বাবা জাহাঙ্গীর আলম হাসপাতালের ৩৬ নম্বর ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন তার মেয়ে ফারজানাকে দেখতে যান। এসময় হিমেল দায়িত্বরত সিনিয়র স্টাফ নার্সদের কাছে বোনের চিকিৎসা সম্পর্কে খোঁজ-খবর নিতে যান।

এর এক পর্যায়ে উভয় পক্ষের মধ্যে কথাকাটাকাটির জের ধরে হিমেল ফেরদৌসি খাতুন নামের এক সিনিয়র স্টাফ নার্সের ওপর চড়াও হন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে ওই নার্স হিমেলের গালে চড় দেন। এসময় হিমেল আরো উত্তেজিত হয়ে ফেরদৌসি খাতুনকে ধাক্কাধাক্কি শুরু করেন। একপর্যায়ে হিমেলের বাবা ফেরদৌসি খাতুনকে চড়-থাপ্পড় মারতে শুরু করেন। এসময় তিনি ওই নার্সের সঙ্গে চরম অশ্লিল আচরণও করেন।

এই ঘটনার পরে হাসপাতালের সব নার্সরা কাজ ফেলে ধর্মঘট শুরু করেন। পরে পুলিশ গিয়ে ছাত্রলীগ নেতা হিমেল এবং তার বাবা জাহাঙ্গীর আলমকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়। এ ঘটনার পরে পরিস্থিতি শান্ত হয়।

স/আর

Print