জয়ের দ্বারপ্রান্তে পাকিস্তান

June 18, 2017 at 9:50 pm
সিল্কসিটিনিউজ ক্রীড়া ডেস্ক:

চ্যাম্পিয়নস ট্রফির ফাইনালে ভারতকে ৩৩৯ রানের বড় লক্ষ্য বেঁধে দিয়েছে পাকিস্তান। সেই লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে চরম ব্যাটিং বিপর্যয়ে পরেছে ভারত।

এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ভারতের সংগ্রহ : ৩০ ওভার শেষে ১৫৮/৯।

৮ উইকেট হারিয়ে চরম ব্যাটিং বিপর্যয়ে ভারত : দলীয় ৫৪ রানে চতুর্থ ও পঞ্চম উইকেট হারিয়ে চরম ব্যাটিং বিপর্যয়ে পরেছে ভারত। এ সময় হাসান আলীর বলে ইমাদ ওয়াসিমের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফিরে যান মাহেন্দ্র সিং ধোনি। তার আগে একই রানে শাদাব খানের বলে এলবিডব্লিউ হয়ে ফিরে যান যুবরাজ সিং। এরপর হার্দিক পান্ডিয়া ঝোড়ো ব্যাটিং করে ব্যবধান কমাচ্ছিলেন। কিন্তু রবীন্দ্র জাদেজার সঙ্গে ভুল বোঝাবুঝিতে রান আউটে কাটা পড়েন তিনি। তারপর ফিরে যান জাদেজাও।

৬ রানের মাথায় কোহলিও সাজঘরে : শূন্যরানে রোহিত শর্মা ফিরে যাওয়ার পর দলীয় ৬ রানের মাথায় কোহলিও সাজঘরে ফিরেন। তৃতীয় ওভারের তৃতীয় বলে প্রথম স্লিপে ক্যাচ ছাড়েন আজহার আলী। পরের বলেই পয়েন্টে শাদাব খানের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফিরে যান কোহলি (৫)।

শুরুতেই সাজঘরে রোহিত : ৩৩৯ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই সাজঘরে ফিরেছেন রোহিত শর্মা। আমিরের করা ইনিংসের তৃতীয় বলেই এলবিডব্লিউর শিকার হন তিনি।

ওভালে আগে ব্যাট করতে নেমে ফখর জামানের সেঞ্চুরি ও মোহাম্মদ হাফিজের ঝোড়ো ফিফটিতে ৪ উইকেটে ৩৩৮ রান তুলেছে পাকিস্তান। ভারতের বিপক্ষে আগে ব্যাট করে এটিই পাকিস্তানের সর্বোচ্চ রান। এই মাঠে সর্বোচ্চ ৩২২ রান তাড়া করে জয়ের রেকর্ড রয়েছে। গ্রুপপর্বে ভারতের বিপক্ষে ৩২২ রান তাড়া করে জয় পেয়েছিল শ্রীলঙ্কা।

সংক্ষিপ্ত স্কোর: ৫০ ওভারে পাকিস্তান ৩৩৮/৪।

মোহাম্মদ হাফিজের ঝোড়ো হাফ সেঞ্চুরি : দলীয় ২৪৭ রানের মাথায় শোয়েব মালিক আউট হয়ে যাওয়ার পর মাঠে নামেন মোহাম্মদ হাফিজ। শুরু থেকেই মারমুখি ব্যাটিং করেন তিনি। শেষ পর্যন্ত ৩৭ বলে ৪টি চার ও ৩টি ছক্কায় ৫৭ রান করে অপরাজিত থাকেন। তার এই ঝোড়ো ইনিংসে পাকিস্তান ৩৩৮ রানের লড়াকু সংগ্রহ পায়।

ফখর জামানের প্রথম সেঞ্চুরি : চ্যাম্পিয়নস ট্রফিতে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে অভিষেক হয় ফখর জামানের। সেই ম্যাচে করেন ৩১ রান। এরপর শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ৫০। আর সেমিফাইনালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে করেন ৫৭ রান। আজ ফাইনালে ভারতের বিপক্ষে ৯২ বলে সেঞ্চুরি তুলে নেন। যা তার ক্যারিয়ারের প্রথম ওয়ানডে সেঞ্চুরি।

প্রথম উইকেটের পতন : দলীয় ১২৮ রানের মাথায় ভুল বোঝাবুঝিতে রান আউটের শিকার হন আজহার আলী। যাওয়ার আগে ফখর জামানের সঙ্গে ১২৮ রানের জুটি গড়ে যান। যেখানে তার অবদান ছিল ৫৯ রান। যা তিনি ৭১ বলে ৬টি চার ও ১ ছক্কায় করেন।

টস: ভারতের অধিনায়ক বিরাট কোহলি টস জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

পরিবর্তন: সেমিফাইনালে বাংলাদেশের বিপক্ষে খেলা একাদশ নিয়ে মাঠে নেমেছে ভারত। অন্যদিকে পাকিস্তান দলে একটি পরিবর্তন আনা হয়েছে। মোহাম্মদ আমির দলে ফিরেছেন। সেমিফাইনালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে অভিষেক হওয়া রুম্মান রইস একাদশের বাইরে।

ভারত একাদশ: শেখর ধাওয়ান, রোহিত শর্মা, বিরাট কোহলি, যুবরাজ সিং, মাহেন্দ্র সিং ধোনি, কেদার যাদব, হার্দিক পান্ডিয়া, ভুবনেশ্বর কুমার, রবীন্দ্রর জাদেজা, রবিচন্দ্রন অশ্বিন ও জসপ্রিত বুমরাহ।

পাকিস্তান একাদশ: আজহার আলী, ফখর জামান, বাবর আজম, মোহাম্মদ হাফিজ, শোয়েব্ মালিক, সরফরাজ আহমেদ, ইমাদ ওয়াসিম, মোহাম্মদ আমির, শাদাব খান, হাসান আলী, জুনায়েদ খান।

ভারতের তৃতীয় না পাকিস্তানের প্রথম: ভারত দুবার চ্যাম্পিয়নস ট্রফির শিরোপা জিতেছে। ২০০২ চ্যাম্পিয়নস ট্রফিতে শ্রীলঙ্কার সঙ্গে যৌথভাবে চ্যাম্পিয়ন হয় ভারত। এরপর ভারত আবার চ্যাম্পিয়ন হয় ২০১৩ সালে। অন্যদিকে পাকিস্তান একবারও মিনি বিশ্বকাপের স্বাদ পায়নি।

১২৮: দুই দল এখন পর্যন্ত ১২৮ ওয়ানডেতে মুখোমুখি হয়েছে। ভারতের ৫২ ম্যাচের বিপরীতে পাকিস্তান ম্যাচ জিতেছে ৭২টি।

১৩: আইসিসি ইভেন্টে দুদলের জয় পরাজয়ের অনুপাত ১৩:২। ভারতের ১৩ জয়ের বিপরীতে পাকিস্তানের জয় মাত্র ২ ম্যাচে।

সূত্র: রাইজিংবিডি

Print