অবশেষে উদ্ধার হলো নদীর মধ্যে মাটিতে চাপা পড়া শ্রমিকের লাশ

May 31, 2017 at 6:40 pm

নিজস্ব প্রতিবেদক:

অবশেষে উদ্ধার হলো নদীর মধ্যে মাটির নিচে চাপা পড়া বালু শ্রমিক সায়িদের লাশ। বুধবার দুপুরে বগুড়া জেলার গাবতলি উপজেলার সোনারতাইর পাকুর তলা ঘাট ইচ্ছামতি নদী থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়। নিহত সায়িদ বগুড়া সদর উপজেলার বেটাভাঙ্গা গ্রামের আজিজুল হক প্রামাণিকের ছেলে।

 

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, গত মঙ্গলবার সোনারতাইর পাকুরতলা ঘাট এলাকার ইচ্ছামতি নদীতে শ্যালোমেশিনের সাহায্যে বালি তুলছিলেন কয়েকজন শ্রমিক। এসময় পাইপে বালি আটকে যাওয়ায় তা পরিষ্কার করতে পানিতে নামেন বালু শ্রমিক সায়িদ। কিন্তু পাইপে তার হাত আটকে যায়।
পাশ থেকে মাটির একটি বড় অংশ তার ওপর ভেঙ্গে পড়ে।

এরপর থেকে তাকে খোঁজাখুজি শুরু হয়। কিন্তু না পেয়ে ফায়ার সার্ভিসে খবর দেয়। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স রাজশাহী সদর দফতরের ডুবুরীদল ঘটনাস্থলে গিয়ে ওইদিন রাতেই উদ্ধার কাজ শুরু করে। কিন্তু রাত গভীর হওয়ায় উদ্ধার কাজ স্থগিত করে বুধবার আবার উদ্ধার কাজ শুরু করে। পরে শ্যালোমেশিনের সাহায্যে ভেঙ্গে পড়া মাটি তুলে দপুর ১২টার দিকে সায়িদকে উদ্ধার করে লিডার (ডুবুরী) নুরুন্নবী ও ডুবুরী আব্দুর রাজ্জাক।

পরে তার লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়। সায়িদের মৃত্যুতে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।
স/আর

Print